ফাইভ-জি সেবা চালুর নির্দেশ! ৩০ অক্টোবরের মধ্যে

দেশের বিমানবন্দর, সমুদ্রবন্দর, শিল্পাঞ্চল ও বাণিজ্যিক এলাকায় আগামী ৩০ অক্টোবরের মধ্যে ফাইভ-জি প্রযুক্তি নিশ্চিত করার জন্য চার মোবাইল অপারেটরদের নির্দেশ দিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক।

 গুলশান–বনানীসহ বেশ কয়েকটি স্থানে বাণিজ্যিকভাবে ফাইভ–জি সেবা চালু করতে মোবাইল অপারেটরদের এ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আজকে ১ জুলাই চালু হচ্ছে নতুন পেনশন কর্মসূচি ‘প্রত্যয়’

রোববার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) ভবনে মোবাইল ফোন অপারেটরদের সঙ্গে কলড্রপ–সংক্রান্ত বিষয়ে এক সভায় প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন।

ফাইভ-জি মোবাইল সেবা নিয়ে পলক বলেন, ফাইভজি রোল আউটেরও একটা নির্দিষ্ট টার্গেট বিটিআরসি এবং চারটি মোবাইল অপারেটরকে দিয়েছি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা এয়ারপোর্ট, সি পোর্ট এবং কিছু বিজনেস ডিস্ট্রিক্টস, কিছু গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক-শিল্পাঞ্চলে ফাইভজি রোল আউট করা। তারপর গ্রাজুয়েলি রোল আউট করা।

বিমানবন্দর, সমুদ্রবন্দর ও বাণিজ্যিক এলাকায় ৩০ অক্টোবরের মধ্যে ফাইভ-জি চালুর নির্দেশ

জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক বলেন, এ বছরের অক্টোবর বা নভেম্বরে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনাল উদ্বোধন হতে পারে। সেই অক্টোবরকে টার্গেট করে চার মোবাইল অপারেটরকে চ্যালেঞ্জ দেন। ৩০ অক্টোবরের মধ্যেই এসব এলাকায় ফাইভ-জি নিশ্চিত করতে বলেন। এ ছাড়া রাজধানীর গুলশান, বনানী, মতিঝিল, আগারগাঁওয়ের মতো এলাকায় ফাইভ-জি প্রযুক্তির মুঠোফোন ও বিভিন্ন প্রযুক্তির ব্যবহার রয়েছে। এসব এলাকাকেও বিবেচনায় নেওয়ার কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী।

সভায় মোবাইল অপারেটরদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব মোবাইল টেলিকম অপারেটরস অব বাংলাদেশ (অ্যামটব) এবং অপারেটরদের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Comment