শাওমি রেডমি কে 50i বাংলাদেশ প্রাইস।রেডমি মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশ।

বাংলাদেশে লঞ্চ হওয়া একটি জনপ্রিয় Xiaomi redmi k 50i মোবাইল ফোন।এতে রয়েছে 8/12 GB RAM এবং ইনবিল্ড 128/256 GB ইন্টারন্যাল স্টোরেজ। শাওমি রেডমি কে 60 বাংলাদেশ দাম 29000 টাকা। ( শাওমি রেডমি কে 50i বাংলাদেশ প্রাইস)

শাওমি রেডমি কে 50i বাংলাদেশ প্রাইস
শাওমি রেডমি কে 50i
শাওমি রেডমি কে 50i

বর্তমান টেক প্রযুক্তির প্রতিযোগিতায় Xiaomi ও পিছিয়ে নেই Xiaomi সিরিজ এর ফোনটি Vivo, Samsung, Oppo, Realme, iQoo কে টক্কর দিতে চলেছে। Xiaomi একটি ভার্সন বাংলাদেশ বাজারে চলে আসছে 8 GB 128 এবং 12 GB 256 এবং সেই সঙ্গে তিনটি বিভিন্ন রঙে(Colour) চলে আসছে। শাওমি রেডমি কে 50i বাংলাদেশ প্রাইস)

Xioami redmi k50i Full Specifications:

শাওমি রেডমি কে 50i ফোনে আছে 6.6 ইঞ্চির আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে। 6050 হার্টজ টাচ স্যাম্পলিং রেট এবং -144 হার্টজ ডায়নামিক রিফ্রেশ রেট।

আবার শাওমি রেডমি কে 50ই ফাস্ট পারফরম্যান্সের জন্য,ব্যবহার করা হয়েছে মিডিয়াটেক ডাইনামসিটি (8100)প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। শাওমি রেডমি k50i বাংলাদেশ প্রাইস।

শাওমি রেডমি কে50i স্মার্টফোনটিতে পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য 5080 এমএএইচ ব্যাটারি এবং 67 ওয়াট ফাস্ট চার্জার আরো বলা হয়েছে 46 মিনিটে ফুল চার্জ করা যাবে। এছাড়া বায়োমেট্রিক প্রমাণ করার জন্য ফোনে সাইড-ফেসিং ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর পাওয়া যাবে।

শাওমি রেডমি কে50i ফোনটিতে অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে থাকছে অ্যানড্রয়েড 12 ভিত্তিক এমআইইউআই 13 (MIUI 13) কাস্টম স্কিনে রান করবে।

ফটোগ্রাফির শাওমি রেডমি কে50i ফোনের পেছনে থাকছে ট্রিপল ক্যামেরা।টাইম ল্যাপস, সিনেম্যাটিক ফিল্টার ও অডিও জুম সাপোর্ট করবে 4k পযন্ত ভিডিও রেকর্ড করা যাবে ।ক্যামেরাগুলি হল 64 মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর,8 মেগাপিক্সেল আল্ট্রাওয়াইড 120 ডিগ্রি ফিল্ড অফ ভিউ ক্যামেরা এবং 2 মেগাপিক্সেলের মেক্রো ক্যামেরা। এই ডিভাইসের সামনে সেলফি বা ভিডিও কলিং এর জন্য থাকছে একটি 16 মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ফেসিং ক্যামেরা।

শাওমি রেডমি কে50i ফোনটি দুইটি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাবে 8 জিবি রেম128 জিবি স্টোরেজ এবং 12 জিবি রেম 256 জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাবে।আবার ৩ জিবি ভার্চুয়াল রেম সাপোর্ট করবে। শাওমি রেডমি কে50i মোবাইল বাংলাদেশ প্রাইস।

শাওমি রেডমি কে50i ফোনের ওজন 200 গ্রাম।

অন্যান্য ফিচারের মধ্যে থাকছে ডুয়েল সিম, ফেস আনলক, ইউএসবি টাইপ-সি, ইনফ্রারেড ইত্যাদি।

Leave a Comment